• শনিবার ২২ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৮ ১৪৩১

  • || ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

সর্বশেষ:
রাসেল ভাইপার নিয়ে আতঙ্ক নয়, বাড়াতে হবে সাবধানতা ও সচেতনতা বান্দরবানে কেএনএফের ৩ সদস্য গ্রেফতার: জেল হাজতে প্রেরণ নয়াদিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে প্রধানমন্ত্রীকে আনুষ্ঠানিক সংবর্ধনা মহাত্মা গান্ধীর প্রতি শ্রদ্ধা প্রধানমন্ত্রীর কাহারঘোনা সংস্কার পরিষদের কৃতিশিক্ষার্থী ও গুণিজন সংবর্ধনা বকশীগঞ্জে অটোভ্যানের চাকায় ওড়না পেঁচিয়ে নারীর মৃত্যু! রাসেল’স ভাইপার নিয়ে জনগণকে আতংকিত না হওয়ার আহ্বান ঢাকা-দিল্লি সম্পর্ক আরও গভীর করতে ৭টি নতুন সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর বকশীগঞ্জে বন্যার পানিতে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, শুরু হয়েছে নদী ভাঙন! আ.লীগের পঁচাত্তর বছর উন্নয়ন-অর্জনে পরিপূর্ণ

বৃদ্ধ বয়সে মানুষ কেন প্রেমে পড়ে?

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ২ মার্চ ২০২৩  

কথায় বলে, প্রেমে পড়ার কোনো বয়স হয় না। যে কোনো বয়সে নতুন করে জীবন শুরু করাই যায়। তবে প্রচলিত একটি ধারণা, বেশি বয়সের পুরুষরা কমবয়সি প্রেমিকাই বেশি পছন্দ করেন। শুধু ধারণা নয়। বাস্তবেও এর অনেক উদাহরণ রয়েছে। যেমন, বলিউডে শ্রীদেবী-বনি কপূর, করিনা কাপুর-সাইফ আলি খান,  টলিউডে দীপঙ্কর দে-দোলন রায়। চোখের সামনে অজস্র উদাহরণ, তবুও আমাদের চারপাশে কেন বেশি বয়সি ব্যক্তি অল্পবয়সি কারো প্রেমে পড়ে- এই নিয়ে প্রশ্নের শেষ নেই।
সম্প্রতি ভারতের ডিএলএফ গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান কেপি সিংহও জানিয়েছেন যে, তিনি ৯১ বছর বয়সে আবার জীবনে নতুন করে প্রেম খুঁজে পেয়েছেন। দীর্ঘ ৬৫ বছর বিবাহিত থাকার পর গত ২০১৮ সালে ক্যান্সারে স্ত্রীকে হারিয়েছিলেন তিনি। স্ত্রীর মৃত্যুর পাঁচ বছর পর নতুন করে তিনি প্রেমে পড়ার খবর ঘোষণা করেছেন। কেপির প্রেমিকার নাম শীনা। যদিও তার বয়স সম্পর্কে কিছু জানাননি শিল্পপতি। 

তিনি বলেঝেন, ‘আমি খুবই ভাগ্যবান। এক জন হাসিখুশি নারী এখন আমার সঙ্গী। তার নাম শিনা। তিনি আমার জীবনের সেরা মানুষের মধ্যে একজন।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমার স্ত্রী মারা যাওয়ার ছয় মাস আগে আমাকে বলেছিলেন যাতে আমি জীবনে হাল না ছেড়ে দিই। তিনি আমাকে বলেছিলেন যে, আমার সামনে আরো অনেকটা জীবন পড়ে আছে। তিনি আমাকে প্রতিশ্রুতি দিতে বলেছিলেন যে আমি জীবনে হাল ছাড়ব না।’

ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসেসের মত অনুযায়ী, বেশি বয়সে, পুরুষ এবং নারী উভয়ই বিভিন্ন কারণে সামাজিক ভাবে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েন। এই কারণগুলো মধ্যে রয়েছে:

>> বয়স্ক বা দুর্বল হয়ে যাওয়া

>> পরিবারের সদস্য হিসাবে গুরুত্ব হারিয়ে ফেলা

>> অবসরপ্রাপ্তির পর কর্মজগৎ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া

>> সঙ্গী কিংবা সমবয়সিদের মৃত্যু

>> অসুস্থতার কারণে শারীরিক ভাবে অক্ষম হয়ে পড়া

বিশেষজ্ঞদের মতে, উপরের কারণগুলোর জন্য বৃদ্ধ বয়সে মানুষ বিষণ্ণতা, একাকিত্ব, উদ্বেগে ভুগতে শুরু করেন। সঙ্গীর অভাবে নিজের মনের মধ্যে চলা উথালপাথাল আর কারো সঙ্গে ভাগ করতে না পেরে শারীরিক ও মানসিক, দুইদিক থেকেই আরো দুর্বল হয়ে পড়েন তারা। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, একাকিত্ব যে কোনো বয়সে যে কাউকে গ্রাস করতে পারে, তাই বৃদ্ধ বয়সে কাউকে পাশে পাওয়া ভীষণ প্রয়োজন।

বৃদ্ধ বয়সে প্রেমে পড়ার ভালো দিক: বৃদ্ধ বয়সে সঙ্গীহারা হওয়ার পর বিষণ্ণতা কাটিয়ে উঠতে প্রেম অনেকটাই সাহায্য করে। কেবল কারো উপর নির্ভর করার জন্যই নয়, মন-মেজাজ ভালো রাখতেও এর জুড়ি নেই। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে বেশি বয়সে প্রেমের সম্পর্কে যাওয়ার পর মানুষ দীর্ঘজীবী হয়েছে। বয়স বাড়লে অনেকের ক্ষেত্রে সন্তারাও মুখ ফিরিয়ে নেন তাদের থেকে। তারাও নিজ নিজ জীবনে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। বাবা-মায়ের সঙ্গে সময় কাটানোর অবসর পান না তারা। তাই সেই সময়ে এক জন সঙ্গীর খোঁজ করলে মন্দ কী? ৯১ বয়সে কেপি সিংহের প্রেমে পড়ার স্বীকারোক্তি আবার উস্কে দিয়েছে সেই প্রশ্ন।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল