• শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২৯ ১৪৩১

  • || ০৫ মুহররম ১৪৪৬

সেই যমজ শিশুর ঠাঁই হলো ছোটমণি নিবাসে, মায়ের আশ্রয়কেন্দ্রে

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

যশোর জেনারেল হাসপাতালে মানসিক ভারসাম্যহীন নারীর গর্ভ থেকে জন্ম নেয়া সেই যমজ শিশুদের সরকারি আশ্রয়কেন্দ্র নেয়া হচ্ছে। দুই শিশুকে পাঠানো হচ্ছে খুলনা ছোটমণি নিবাসে আর তাদের মায়ের ঠাঁই হচ্ছে গাজীপুরের কাশিমপুর সরকারি আশ্রয়কেন্দ্রে।
সোমবার যশোর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে শিশু কল্যাণ বোর্ডের সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এর আগে বৃহস্পতিবার পুলিশের আবেদনের শুনানিতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত-১ এর বিচারক ঐ নারী ও যমজ শিশুর বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য জেলা শিশু কল্যাণ বোর্ডকে দায়িত্ব দেন।

শিশু কল্যাণ বোর্ডের সদস্য সচিব সমাজ সেবা অধিদফতর যশোরের উপপরিচালক অসীত কুমার সাহা বলেন, যমজ সন্তানকে পাঠানো হবে খুলনা ছোটমণি নিবাসে আর তাদের মা ভারসাম্যহীন নারী ঠাঁই হচ্ছে গাজীপুরের কাশিমপুর সরকারি আশ্রয় কেন্দ্রে। তবে এখই তাদের পাঠানো হচ্ছে না। বাচ্চাদের কোনো নামও রাখা হয়নি। এখনো আইনি বাধ্যবাধকতা আছে। আশা করছি চলতি সপ্তাহে তাদের পাঠাতে পারবো।

এদিকে, ১৫ দিন ধরে যশোর জেনারেল হাসপাতালে যমজ সন্তান ও তাদের মা চিকিৎসাধীন। তারা সুস্থ আছেন। কিন্তু তাদের দায়িত্ব স্বজনদের কেউ নিতে রাজি হননি। এতে ঐ মা ও তার দুই সন্তানকে নিয়ে বিপাকে পড়ে প্রশাসন ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক হারুন-অর রশিদ বলেন, মানসিক ভারসাম্যহীন ঐ নারী ও যমজ সন্তান সুস্থ আছে। যেকোনো সময় তাদের হাসপাতাল থেকে নেয়া যাবে।

উল্লেখ্য, ৩ সেপ্টেম্বর যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার ধলগ্রাম ইউনিয়নের নতুন গ্রামের জামিরুল ইসলামের খড়ের ঘরে মানসিক ভারসাম্যহীন ঐ নারী যমজ সন্তান প্রসব করেন। পরে গৃহকর্তা জামিরুল ঐ নারীকে বাঘারপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। ঐদিন সন্ধ্যায় তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার করা হয়। এরপর থেকে মা ও দুই নবজাতক সেখানেই চিকিৎসাধীন।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল