• শুক্রবার ৩১ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪৩১

  • || ২২ জ্বিলকদ ১৪৪৫

আজকের টাঙ্গাইল
সর্বশেষ:
সিলেটে বন্যার্তদের পাশে ছাত্রলীগ কৃষিপণ্যের মধ্যস্বত্বভোগীদের দৌরাত্ম কমাতে হবে আক্তারুজ্জামানকে আমেরিকা থেকে ফেরাতে ভারতের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের জন্য বিনামূল্যে লেখাপড়ার সুযোগ দিচ্ছে চীন থার্ড টার্মিনালের নির্মাণ কাজের ৯৭ ভাগ শেষ হয়েছে: পর্যটন মন্ত্রী জাইকার সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্টের সাথে গণপূর্ত মন্ত্রীর সাক্ষাৎ তৃতীয় ধাপে প্রাথমিক শিক্ষক পদে মৌখিক পরীক্ষা নিতে বাধা নেই বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন উপকূলীয় অঞ্চলকে জলদস্যু-ডাকাত মুক্ত করব উন্নত জাতি গঠনে শিশুশ্রম নিরসনের কোন বিকল্প নেই সরকারি অনুমোদিত পদের মধ্যে ৩ লাখ ৭০ হাজার ৪৪৭টি পদ শূন্য

রাজশাহীর আম গেল রাশিয়ায়

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ২৭ আগস্ট ২০২৩  

এই প্রথমবারের মতো রাজশাহী আম রাশিয়ায় রফতানি করা হয়েছে। শনিবার সকালে ২০০ কেজি গৌরমতি, ১০০ কেজি কাটিমনসহ মোট ৩০০ কেজি আম এয়ার আরাবিয়ার জি৯-৫১৭ ফ্লাইট রাশিয়ার উদ্দেশে ঢাকা ছেড়ে যায়।
রাজশাহী কৃষি অঞ্চলভিত্তিক একটি রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান আমগুলো রফতানি করেছে। আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান এমটিবি অ্যাগ্রো অ্যান্ড গার্ডেনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাহতাব আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, প্রথমবারের মতো বাংলাদেশি আম রাশিয়ায় গেল। আমগুলো চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলার কুন্দুয়া গ্রামের চুক্তিবদ্ধ আমচাষি নাজিম উদ্দিনের বাগান থেকে সংগ্রহ করা হয়েছিল।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে কাজ করা রাশিয়ান কোম্পানি ন্যাশনাল ইলেকট্রিক এলএলসির অংশীদার হিসেবে আমগুলো রাশিয়ায় আমদানি করছে এমটিবি অ্যাগ্রোর বিপণন বিভাগ।

এমটিবি অ্যাগ্রো অ্যান্ড গার্ডেনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাহতাব আলী জানান, রাশিয়ায় আম রফতানি করা সহজ ছিল না। গত ৩ বছর ধরে চেষ্টার পর এবার নিয়ে যেতে পেরেছেন।

রাশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত কামরুল আহসান এবং রাশিয়ান ফেডারেশনের রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার ভিকেন্তেভিচ মানটিটস্কির প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে তিনি বলেন, এই মাইলফলক স্থাপনে দুই দেশের দূতাবাস একযোগে কাজ করেছে। নিরাপদ ও স্বাস্থ্যকর আম এবং উপযুক্ত প্যাকেজিং নিশ্চিত করে আমের একটি ব্র্যান্ড ইমেজ প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়েছি।

মাহতাব আলী আরো বলেন, রাশিয়ার আম আমদানি নীতিমালা অনুযায়ী গত বছর বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটে (বিএআরআই) বাংলাদেশি আম পরীক্ষা করে রুশ কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছিল। রুশ কর্তৃপক্ষ আমের নমুনা পরীক্ষা করে আগামী ৫ বছরের জন্য রাশিয়ায় আম রফতানির অনুমতি দিয়েছে। আগামী বছর খিরসাপাত আমের জিআই পণ্যসহ অন্যান্য জাতের আম রাশিয়ায় পাঠানোর ব্যাপারে আশাবাদী ব্যক্ত করেন এই কর্মকর্তা।

এ বিষয়ে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের আঞ্চলিক অতিরিক্ত পরিচালক শামসুল ওয়াদুদ জানান, প্রতিবছরই আম রফতানি বাড়ছে। এ বছর রাজশাহী অঞ্চল থেকে প্রায় সাড়ে ৪০০ টন আম রফতানি হয়েছে।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল