• শনিবার ২২ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৮ ১৪৩১

  • || ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

সর্বশেষ:

রৌমারীতে দ্বিতীয় দফায় ঝড়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ৩০ মে ২০২৪  

কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলে দ্বিতীয় দফায় ঝড়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ঘরবাড়ি, গাছপালা, বৈদ্যুতিক লাইন, ট্রান্সফরমার ও খুটিসহ বিভিন্ন ফসল ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। 

গাছপালা, বৈদ্যুতিক তার ও খুটি পড়ে যাওয়ায় রাস্তায় চলাচল বিঘœ ঘটে। 

পরে ফায়ার সার্ভিস ও থানা পুলিশ সংবাদ পেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায় গিয়ে গাছপালাগুলো কেটে সরিয়ে দেয়। পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করেন রৌমারী উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম শালু ও রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লা হিল জামান।
ঝড়ে আহত হয়েছে ৬ জন। আহতরা হলেন, পুরান ঝগড়ারচর গ্রামের আখিরুল ইসলাম আতিক (১২), উজান ঝগড়ারচর গ্রামের সাদা মিয়া (৪৫), বাবলু মিয়া (৩৫), মহুজল আলম (৩৮), শাজাহান আলী (৩১) ও সফিয়া বেগম (২৯)। বৃহস্পতিবার দুপুরে ক্ষতিগ্রস্থ অঞ্চলে প্রবল ঝড় হয়। এতে ক্ষয়ক্ষতি ও আহত হওয়ার ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে গুরুত্বর আহত আখিরুল ইসলাম আতিকে উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তার অবস্থার আরো অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। সে স্থানীয় একটি হাইস্কুলে সপ্তম শ্রেনিতে লেখাপড়া করেন। জানা যায়, শিশুটির বাবা অন্যত্রে বসবাস করেন। মা ঢাকায় একটি গার্মেন্ট এ চাকুরি করেন। সে তার নানার বাড়িতে থাকে।   
ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা ঘুরে দেখাগেছে, উপজেলার দাঁতভাঙ্গা মডেল কলেজের শ্রেণিকক্ষের ঘরটি ভেঙ্গে পড়ে। ঝগড়ারচর গ্রামের জয়নাল আবেদিন, বাইজিদ মিয়া, আলম মিয়া, শহিদ মিয়া, হরিণ ধরা গ্রামের শাজাহান আলী, মিঠু মিয়া, আব্দুস সালাম, কবিতন বেওয়ার বসতঘর, গুটলিগ্রামের ইমান আলী, উজান ঝগড়ারচর গ্রামের আব্দুল মতিন, খেতারচর গ্রামের রফিকুল ইসলাম, আজিজুল হক, শেখ ফরিদ ও বালুরগ্রামের মহিদুল ইসলামের বাড়ি ক্ষতিগ্রস্থ হয়। পাশাপাশি আংশিক ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়ে চেংটাপাড়া, নওদাপাড়া, চরবোয়ালমারী, কাউনিয়ারচর, দাঁতভাঙ্গাগ্রাম,হাজি¦রহাট, ছাটকড়াইবাড়ি, ধর্মপুর ও কাউয়ারচর গ্রামসহ বেশ কয়েকটি অঞ্চলে এ ক্ষতি হয়।
উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম শালু বলেন, ঝড়ে ঘরবাড়ী ও ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তাদের তালিকা করতে বলা হয়েছে কৃষি ও পিআইও অফিস কর্মকর্তাদের। তালিকা পাওয়ার পর তাদের সহযোগিতা করা হবে।
অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লা হিল জামান বলেন, ঝড়ে বেশ কয়েকটি বড় বড় গাছগুলো রাস্তায় পড়ে যাওয়ায় যানবাহনসহ মানুষের চলাচল বিঘœ ঘটে। পরে ফায়ার সার্ভিস এর লোকজন গাছপালাগুলো কেটে সরিয়ে দিয়ে চলাচলের জন্য ব্যবস্থা করে।
 

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল