• শুক্রবার ৩১ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪৩১

  • || ২২ জ্বিলকদ ১৪৪৫

আজকের টাঙ্গাইল

উপ-কমিটি শিগগিরিই, প্রাধান্য পাবেন ছাত্রলীগের সাবেকরা

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ২১ মার্চ ২০২৩  

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের অপূর্ণাঙ্গ উপ-কমিটিগুলোকে পূর্ণাঙ্গ রূপ দিতে চলছে তোড়জোড়। ১৮টি সম্পাদকীয় বিভাগের উপকমিটি রমজানের আগেই গঠন করা হবে। এক্ষেত্রে প্রাধান্য পাবেন সাবেক ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। দলীয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
সূত্র মতে, আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র ২৫ এর ‘ক’ উপধারায় দলের সভাপতির কার্যাবলীতে বলা হয়েছে, সভাপতি বিভাগীয় (সম্পাদকীয় বিভাগ) উপ-কমিটিগুলো গঠন করবেন। তিনি প্রতিটি উপ-কমিটির জন্য অনূর্ধ্ব পাঁচজন সহ-সম্পাদক মনোনীত করবেন।

সূত্রে জানা গেছে, উপ-কমিটির আলোচনায় সাবেক ছাত্রলীগের নেতাদের মধ্যে আলোচনায় রয়েছেন- সাইফুর রহমান সোহাগ, এস এম জাকির হোসেন, মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন ও গোলাম রব্বানী, রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, আল-নাহিয়ান খান জয় এবং লেখক ভট্টাচার্য্য।

আলোচনায় রয়েছেন- সাইফুর রহমান সোহাগ, এস এম জাকির হোসেন, মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন ও গোলাম রব্বানী, রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, আল-নাহিয়ান খান জয় এবং লেখক ভট্টাচার্য্য।

এদিকে উপ-কমিটিতে ঠাঁই পেতে সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য, চেয়ারম্যান, কো-চেয়ারম্যানদের কাছে ধরনা দিচ্ছেন পদপ্রত্যাশীরা। সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্যদের বাসা, অফিস, দলীয় কর্মসূচিতে সাক্ষাৎ করে পদ প্রত্যাশার কথা বলছেন তারা। অনেকে আবার রাজনৈতিক কার্যালয়েও ঢুঁ মারছেন। তবে এবার হাইব্রিড নয়, প্রতিশ্রুতিশীল রাজনীতি যারা করেন তাদের নিয়েই কমিটি করা হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

তাদের মতে, দলের দুঃসময়ে যারা নির্যাতিত হয়েছেন, অবদান রেখেছেন, রাজপথে ছিলেন কিংবা সহযোগী ও সমমনা সংগঠনে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন কিন্তু কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ পাননি বা তাদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি, তারা ঠাঁই পাবেন উপ-কমিটিতে।

সম্প্রতি আওয়ামী লীগের যৌথসভায় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, এরই মধ্যে উপ-কমিটিগুলোর চেয়ারম্যান-সদস্য সচিবের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত উপ-কমিটিগুলো পুর্ণাঙ্গ করা হয়নি। আশা করি, কমিটি পূর্ণাঙ্গ প্রক্রিয়ায় দায়িত্বপ্রাপ্তরা যার যার সীমানা থেকে উদ্যোগ নেবেন। এ বিষয়ে আমি বিশেষভাবে অনুরোধ করছি।

উপ-কমিটিগুলোর চেয়ারম্যান-সদস্য সচিবের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। কমিটি পূর্ণাঙ্গ প্রক্রিয়ায় দায়িত্বপ্রাপ্তরা যার যার সীমানা থেকে উদ্যোগ নেবেন।

তিনি আরো বলেন, সময় খুব বেশি নেই। যেসব কমিটি এখনো অপূর্ণাঙ্গ রয়েছে, সেগুলো দ্রুত শেষ করতে হবে। রমজান মাসের আগেই এই উপ-কমিটি গঠন প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে। আর যেসব সহযোগী সংগঠনগুলোর কমিটির তালিকা এরই মধ্যে জমা দেওয়া হয়েছে, দ্রুত সেগুলো ঘোষণা করা হবে।

উপ-ক‌মি‌টির বিষয়ে জান‌তে চাইলে আওয়ামী লী‌গের যুগ্ম সাধার সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন না‌ছিম ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, নেত্রীর নির্দেশনা রয়ে‌ছে দ্রুত ক‌মি‌টির ক‌াজ শেষ করা। সেই অনুযায়ী কাজ করছি। গত কমিটির কিছু সদস্য অবশ্যই থাকবে। নতুন কিছু যুক্ত হবে। সাধারণত আওয়ামী লী‌গের উপ-ক‌মি‌টি‌তে সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের প্রাধান্য পেয়ে থাকেন।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শামসুন্নাহার চাঁপা বলেন, ত্যাগীদের মূল্যায়ন করা হবে। কমিটির চেয়াম্যান, কো-চেয়ারম্যান রয়েছেন তারা বিষয়টি দেখছেন। এছাড়া সিনিয়র নেতারা রয়েছেন। তারাও দায়িত্ব পালন করছেন।

উল্লেখ্য, গত ২২ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের বিভিন্ন বিভাগীয় উপ-কমিটির চেয়ারম্যান ও কো-চেয়ারম্যান মনোনয়ন দিয়েছেন দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

২২ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের বিভিন্ন বিভাগীয় উপ-কমিটির চেয়ারম্যান ও কো-চেয়ারম্যান মনোনয়ন দিয়েছেন দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দায়িত্ব প্রাপ্তরা হলেন- অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান মশিউর রহমান, কো-চেয়ারম্যান ইনাম আহমেদ চৌধুরী। আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অ্যাম্বাসেডর মোহাম্মদ জমির। আইন বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন। কৃষি ও সমবায় বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান কৃষিবিদ মির্জা জলিল। তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক সাইদুর রহমান খান এবং কো-চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম।

দফতর উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. অনুপম সেন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান এ কে এম রহমত উল্লাহ, কো-চেয়ারম্যান চৌধুরী খালেকুজ্জামান। ধর্ম বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান খন্দকার গোলাম মওলা নকশবন্দী, প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন চুপ্পু ও কো- চেয়ারম্যান অধ্যাপক সাদেকা হালিম।

বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক খন্দকার বজলুল হক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. হোসেন মনসুর।

মহিলা বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক সুলতানা শফি ও কো-চেয়ারম্যান মাজেদা রফিকুন্নেছা, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান রশিদুল আলম, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান মোজাফফর হোসেন পল্টু ও কো-চেয়ারম্যান হারুনুর রশীদ।

শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আব্দুল খালেক ও কো-চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাহিদ, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান কাজী আকরাম উদ্দীন আহমদ, শ্রম ও জনশক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুল হাফিজ মল্লিক ও কো-চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সিরাজ।

সংস্কৃতি বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান আতাউর রহমান, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল