• শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১১ ১৪৩০

  • || ১৩ শা'বান ১৪৪৫

আজকের টাঙ্গাইল

রংপুরে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে সড়ক-সেতুর নির্মাণকাজ

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ৩ ডিসেম্বর ২০২৩  

রংপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের আওতায় ৭৭৯ কোটি ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে সড়ক, সেতু ও কালভার্ট নির্মাণের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। গত ৫ বছরে ১০টি প্রকল্পে সড়ক বিভাগ এ কাজ করছে। এরমধ্যে বেশির ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। দুই-একটি কাজ চলমান রয়েছে বলে রংপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে। সড়ক উন্নয়নের ফলে রংপুরের সঙ্গে গাইবান্ধা-ঢাকা-কুড়িগ্রাম-পীরগঞ্জ-তারাগঞ্জ-দিনাজপুর-গংগাচড়া-বাবনডাঙ্গা-শঠিবাড়ি এলাকার মানুষের যাতায়াত ব্যবস্থা সহজতর হয়েছে। রংপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের অফিস সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সাল থেকে চলতি বছর পর্যন্ত সড়ক উন্নয়নের ১০টি প্রকল্পের কাজ এরমধ্যে শেষ হয়েছে। প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে, গাইবান্ধা-সাদুল্লাপুর-রংপুরের পীরগঞ্জ-দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের ৪৫ দশমিক ৩০ কিলোমিটার প্রশস্তকরণের কাজ শুরু হয় ২০১৭ সালে, শেষ হয় ২০১৯ সালে। এ প্রকল্পে ব্যয় হয়েছে ৯৭ কোটি টাকা। পিএমপি মেজর সড়ক প্রকল্পে ২টি করে জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কের কাজ শুরু হয় ২০১৮ সালে। শেষ হয়ে এর ১ বছর পর। এই সড়কের মোট দৈর্ঘ্য ছিলো ৫৪ দশমিক ৪১ কিলোমিটার। ব্যয় হয়ে হয়েছে ৪৩ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। ২০১৮ সালে পিএমপি মেজর সেতু কালভার্ট প্রকল্পে ৪টি আঞ্চলিক সড়কে ৪টি কালভার্ট নির্মাণ করা হয়। এ কালভার্টের দৈর্ঘ্য ছিলো ২৭ মিটার। ব্যয় হয়েছে ২ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। পিএমপি মেজর সড়ক প্রকল্পে সেতু কালভার্ট অপর একটি প্রকল্পে ৩টি আঞ্চলিক মহাসড়কে কালভার্ট নির্মাণের কাজ শেষ হয় ২০২২ সালে। ২ বছর আগে এ প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছিল। ৩৫ মিটার দৈর্ঘ্যের ৭টি কালভার্ট নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৪ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। জেলা সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প রংপুর জোনের আওতায় ৫২ দশমিক ৩৪ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য ৫টি আঞ্চলিক মহাসড়কের কাজে ৮৩ কোটি ৯ লাখ টাকা ব্যয় হয়। ২০১৮ সালে প্রকল্পের কাজ শুরু হয়ে ২ বছর পর এটি শেষ হয়। পিএমপি মেজর প্রকল্প ৩টি করে জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কের ২ বছর মেয়াদী কাজ শেষ হয় ২০২১ সালে। ৯০ দশমিক ৬০৭ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য সড়কে ব্যয় করা হয় ৯৯ কোটি ২২ লাখ টাকা। বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিভুক্ত প্রকল্পের আওয়ায় ৭১ দশমিক ৭৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য গাইবান্ধার বাবনডাঙ্গা-রংপুরের শঠিবাড়ি ও দিনাজপুরের আফতাবগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের কাজ হয় ৪৬০ কোটি ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে। বর্তমানে কাজটি চলমান রয়েছে। পিএমপি মেজর প্রকল্পের আওতায় রংপুর-কুড়িগ্রাম আঞ্চলিক মহাসড়কের, মীরবাগ, নব্দিগঞ্জ, পার্কের মোড়সহ বিভিন্ন স্থানে ২৫ কোটি ৬৬ লাখ টাকা ব্যয়ে সংস্কার কাজ করা হয়। চলতি বছরের নভেম্বরে এর কাজ শেষ হয়েছে। পিএমপি মেজর প্রকল্পের কালভার্ট ও সেতু প্রকল্পের আওতায় রংপুরের হাজিরহাট, লাঙ্গলেরহাট, বেতগাড়ি আঞ্চলিক মহাসড়কে সেতু পুনঃনির্মাণে ব্যয় হয় ৮ কোটি ১৫ লাখ টাকা। এ প্রকল্পের কাজটি আগামী বছরের মে মাসে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। রংপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সাজেদুর রহমান জানান, গত ৫ বছরে রংপুরের জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কে যে উন্নয়নের কাজ হয়েছে তাতে সড়ক দুর্ঘটনার হার অনেক কমে এসেছে। সড়কগুলো প্রশস্ত করাসহ ডিভাইডার নির্মাণ করায় যানজট কমে গেছে। আর মানসম্মত কাজ হওয়ায় ভারী যানবাহন চলাচল করলেও সড়কগুলোর কোনো ক্ষতি হবে না বলে জানান তিনি।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল