• মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪৩১

  • || ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪৫

আজকের টাঙ্গাইল

দেশে প্রথমবার পেসমেকার বসানো রোগীর শরীরে কৃত্রিম ভাল্‌ভ

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ২২ অক্টোবর ২০২৩  

রাজধানীর ধানমন্ডির বাসিন্দা এইচ এম খাইরুল বাশারের হঠাৎ হার্ট দুর্বল হয়ে পড়ে। পর্যাপ্ত স্পন্দন তৈরি করতে না পারায় ২০১৬ সালে হার্টে পেসমেকার যন্ত্র বসানো হয়। এর পর কয়েক বছর সুস্থ ছিলেন এই ব্যবসায়ী। ২০২৩ সালে আবার হার্টে সমস্যা দেখা দেয়। চিকিৎসকরা জানান হার্টের ভাল্‌ভের কার্যকারিতা হারিয়েছে, নতুন করে কৃত্রিম ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপন করতে হবে।

শুরুতে রোগীর স্বজনরা রাজি না থাকলেও খাইরুল বাশারের ছেলের সিদ্ধান্তে পেসমেকার বসানো রোগীর বুকের পাঁজরের হাড় কেটে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপন করা হয়। চিকিৎসকরা বলছেন, দেশে পেসমেকার বসানো রোগীর শরীরে কৃত্রিম ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপন এটিই প্রথম।

হৃদরোগ বিশেষজ্ঞরা বলেন, হার্ট দুর্বল হয়ে যখন পর্যাপ্ত স্পন্দন তৈরি করতে পারে না, তখন পেসমেকার যন্ত্র বসাতে হয়। ব্যাটারিচালিত ছোট এই জেনারেটর যন্ত্রটি বুকের পাঁজরের হাড় ও মাংসপেশির ওপর চামড়ার নিচে স্থায়ীভাবে বসানো হয়। জেনারেটরের সঙ্গে সংযুক্ত লম্বা তার শিরার ভেতর দিয়ে হার্টে পৌঁছানো হয়। জেনারেটরে তৈরি স্পন্দন হার্টে পৌঁছে দিয়ে বাকি জীবন হার্টের স্পন্দনের গতি ঠিক রাখে কৃত্রিম এই পেসমেকার যন্ত্র। সাধারণত বয়স্ক রোগীদের ধীরগতির হৃৎস্পন্দনের চিকিৎসায় হার্টে যন্ত্রটি বসানোর দরকার পড়ে।

হার্টে পেসমেকার বসানো ৭২ বছর বয়সী এক রোগীর হার্টের ভাল্‌ভও নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। নষ্ট হওয়া অ্যাওটিক ভাল্‌ভটির একমাত্র চিকিৎসা কৃত্রিম ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপন। বুকের পাঁজরের হাড় কেটে অস্ত্রোপচার মাধ্যমে ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপন এই রোগীর ক্ষেত্রে দুরূহ। আবার ইন্টারভেনশনাল পদ্ধতিতে কৃত্রিম ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপনও খুব ঝুঁকিপূর্ণ।

তবে সব ধরনের ঝুঁকি কাটিয়ে এই জটিল চিকিৎসায় সফল হয়েছেন দেশের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. আফজালুর রহমান। রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে গত ১৫ জুলাই তাঁর নেতৃত্বে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দল ওই বৃদ্ধের জটিল কার্ডিয়াক ইন্টারভেনশনাল পদ্ধতিতে ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপন সম্পন্ন করেন।

এ ব্যাপারে অধ্যাপক ডা. আফজালুর রহমান সমকালকে বলেন, হার্টের অ্যাওটিক ভাল্‌ভ নষ্ট হলে সাধারণত অপারেশনের মাধ্যমে ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপনের চিকিৎসা করা হয়। তবে বয়স্ক এবং জটিল রোগীদের ক্ষেত্রে অনেক সময় ইন্টারভেনশনাল পদ্ধতিতে ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপনের পদ্ধতি এখন স্বীকৃত চিকিৎসা পদ্ধতি। এই পদ্ধতিতে ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপনে বিশেষ দক্ষতার প্রয়োজন। আমাদের দেশে এই পদ্ধতিতে এটি প্রতিস্থাপন খুব বেশিদিন হয়নি শুরু হয়েছে এবং খুব সীমিত পরিসরে হচ্ছে। তবে হার্টে পেসমেকার যন্ত্র বসানো রোগীর হার্টে এই পদ্ধতিতে কৃত্রিম ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপন বাংলাদেশে এই প্রথম।

তিনি বলেন, কোনো জটিলতা ছাড়াই সফলভাবে এই চিকিৎসা সম্পন্ন করতে পেরে আমি আনন্দিত। রোগী বর্তমানে সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন। তিনি বলেন, এই ভাল্‌ভ দুটি কোম্পানি থেকে কেনা যায়। ভারতীয় ভাল্‌ভের দাম ১৪ লাখ টাকা এবং আমেরিকার ভাল্‌ভ ২৩ লাখ টাকা।

রোগীর ছেলে এনামুল বাশার তামিম সমকালকে বলেন, আমরা ওপেন হার্ট সার্জারির বিকল্প চিকিৎসা খুঁজছিলাম। তখন অধ্যাপক ডা. আফজালুর রহমান ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপনের পরার্মশ দেন। ঝুঁকি থাকায় প্রথমে পরিবারের অন্য সদস্যরা রাজি হননি। পরে আমি সবাইকে রাজি করিয়ে গত জুলাই মাসে ভাল্‌ভ প্রতিস্থাপন করি। রোগী মাত্র ছয় দিন হাসপাতাল ভর্তি ছিলেন। এক মাস পর চিকিৎসক আবার যেতে বলেছেন। তাঁর চিকিৎসায় খরচ হয়েছে ২৫ লাখ টাকা।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল