• বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ১১ ১৪৩১

  • || ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

চুরি করা দেখে ফেলায় হত্যা, যুবকের যাবজ্জীবন

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ৩০ মে ২০২৪  

কুমিল্লায় সিঁধ কেটে বসতঘরে ঢুকে স্বর্ণালঙ্কর ও নগর টাকা চুরিসহ ভিকটিম গৃহকর্ত্রীকে ধারালো ছুরিকাঘাত করে খুন করার অপরাধে একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (৩০ মে) কুমিল্লা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ পঞ্চম আদালতের বিচারক মোছা. ফরিদা ইয়াসমিন এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আরাফাত হোসেন দিদার (২৮) কুমিল্লার মনোহরগঞ্জের হাতিমারা গ্রামের আবুল হাসেমের ছেলে। নিহত গৃহকর্ত্রীর শিউলি আক্তার (৩৫) ঐ গ্রামের মৃত দেলোয়ার হোসেনের মেয়ে। মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৪ সালের ১৭ জুন রাত ২টার দিকে আসামি দিদার কুমিল্লা মনোহরগঞ্জ উপজেলার হাতিমারা গ্রামে ভিকটিমের বসতঘরে সিঁধ কেটে প্রবেশ করেন। ঘরের মালামাল চুরি করার সময় নড়াচড়ার শব্দে ঘুম ভেঙে গেলে চুরি করা অবস্থায় ভুক্তভোগী শিউলি আক্তার চোরকে দেখে ফেলেন। এতে চোর ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করে শিউলিকে জখম করে এক ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইন ও নগদ ১০ হাজার টাকা নিয়ে ঘর থেকে দৌড়ে পালিয়ে যান। পরবর্তীতে শিউলির অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেলে নিয়ে যান। পরের দিন সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভিকটিম শিউলি আক্তার মারা যান। এ ঘটার পর দিন নিহতের বড়ভাই জামাল হোসেন বাদী হয়ে একই গ্রামের আরাফাত হোসেন দিদারকে একমাত্র আসামি করে মনোহরগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। বৃহস্পতিবার ১৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আসামি দিদারের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৩ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এ ছাড়া দোষী সাব্যস্ত করে আসামিকে অন্য এক ধারায় ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি এপিপি অ্যাডভোকেট মো. জাকির হোসেন বলেন, এ রায়ে রাষ্ট্রপক্ষ এবং বাদীপক্ষ সন্তুষ্ট। আমরা আশা করছি, উচ্চ আদালত এ রায় বহাল রাখবেন।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল