• শনিবার ২২ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৮ ১৪৩১

  • || ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

কুমিল্লার বরুড়ায় স্বেচ্ছাশ্রমে দেড় কিমি. রাস্তা তৈরি গ্রামবাসীর

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ৩০ মে ২০২৪  

জেলার বরুড়া উপজেলায় নিজেদের উদ্যোগে নিজেরাই মাঠের মাঝখান দিয়ে রাস্তা তৈরি করছেন কয়েকটি গ্রামের বাসিন্দারা। উপজেলার খোশবাস দক্ষিণ ইউনিয়নের জয়নগর থেকে বরুড়া পৌরসভার দেওড়া পর্যন্ত এ রাস্তা নির্মাণ করছেন তারা। কোদাল-ঝুড়ি নিয়ে রাস্তার তৈরির কাজে নামেন ৬০ জন মানুষ। প্রায় দেড় কিলোমিটার রাস্তা তৈরি করবেন তারা। স্থানীয়রা জানান, খোশবাস দক্ষিণ ইউনিয়নের জয়নগর এবং আশপাশের ১০টি গ্রামের মানুষকে বরুড়া পৌর সদরে যেতে অনেকটা পথ ঘুরে যেতে হয়। অথচ দেড় কিলোমিটার রাস্তা তৈরি করলেই ভোগান্তি কমে গ্রামবাসীর। এছাড়াও বিশাল ওই ফসলের মাঠে জমিতে চাষের জন্য ট্রাক্টর যেতে পারে না। ফসল তুলে বাড়িতে নেওয়ার জন্য কোনো গাড়িও নয়। এই মাঠের জমিগুলোতে পানির সেচ নিয়েও কৃষকদের ভোগান্তি বেশ। গ্রামবাসী নিজেরাই রাস্তা তৈরির উদ্যোগ নেন তারা। তাদের সাথে একাত্মতা করে অন্তত ১০টি গ্রাম থেকে ৬০ জন মানুষ মাটি কেটে রাস্তা তৈরির উদোগে নেমে পড়েন। মনির হোসেন নামের এক বাসিন্দা বলেন, আমরা আশপাশের গ্রামের মানুষদের নিয়ে বৈঠক করে নিজেরাই রাস্তা তৈরির সিদ্ধন্ত নিই। সকাল থেকে কাজ শুরু হয়েছে। আট থেকে দশ দিন সময় লাগতে পারে। আজকে ৬০ জন মানুষ আছেন। আগামীকাল আরও বাড়তে পারে। আমিনুল ইসলাম নামের আর এক বাসিন্দা বলেন, রাস্তাটি তৈরি হলে জমিতে ফসল উৎপাদন সহজ হওয়ার পাশাপাশি যাতায়াতের সুবিধাও পাবে অন্তত ১০ হাজার মানুষ। এছাড়া এ সড়কটি নির্মাণের ফলে পার্শ¦বর্তী খোশবাস দক্ষিণ ইউনিয়নের চালিয়া, সুরিচো, জয়নগর, কালামুড়িসহ ১০টি গ্রামের প্রায় দশ হাজার মানুষ সহজে উপজেলা সদরে সহজে যাতায়াতে সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। এছাড়া আরোও জানান আরো প্রায় দশ দিনের মধ্যে এ সড়কের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হবে বলে তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন। খোশবাস দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী আব্দুর রব বলেন, গ্রামবাসীর রাস্তা তৈরির বিষয়টি সম্পর্কে আমি জেনেছি। এ ব্যাপারে বরুড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নু এমং মারমা মং বলেন, গ্রামবাসী রাস্তা তৈরির বিষয়টির সম্পর্কে আমি জেনেছি। আমি সরেজমিনে পরিদর্শনে গিয়ে দেখে আসবো। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বরুড়া পৌরসভা মেয়র মো. বকতার হোসেন জানান, দেওড়া গ্রামের বাসিন্দাদের উদ্যোগে স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা নির্মাণের বিষয়টি অবগত হওয়ার পর আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছি এবং এ নির্মাণ কাজে পৌরসভা থেকে আর্থিক সহায়তা প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেছি।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল