• শনিবার   ০২ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৮ ১৪২৯

  • || ০২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

আজকের টাঙ্গাইল

ভূঞাপুরে স্কুল-কলেজের পাশে বখাটে ছেলে পেলেই গ্রেপ্তার

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ১১ জুন ২০২২  

টাঙ্গাইলে উঠতি বয়সী তরুণ-যুবক বখাটে ও কিশোর গ্যাংয়ের উৎপাত বেড়েই চলছে। ছোট-খাট চুরি, ছিনতাই ও নেশা করাসহ তারা জড়িয়ে পড়ছে নানা ধরনের অপরাধে। বিশেষ করে স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসার সামনে ও রাস্তা-ঘাটে তরুণ বখাটের উৎপাতে এসব কিশোর গ্যাং সক্রিয় হয়ে উঠেছে।
তারা দলবদ্ধ হয়ে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা পড়–য়া ছাত্রীদের যাওয়া আসার পথে ইভটিজিং, প্রেমের প্রস্তাব এবং কু-প্রস্তাব দিয়ে থাকে। আর এসবে রাজি না হলে অপহরণ ও ধর্ষণে জড়িয়ে পড়েছে তারা।
 
সম্প্রতি উপজেলার নিকরাইল ইউনিয়নের সিরাজকান্দি দাখিল মাদ্রাসা ছাত্রীরা আসা যাওয়ার পথে স্বপন ও সাগরসহ বেশ কয়েকজন বখাটের নির্যাতনের শিকার হয়।
 
শুধু তাই নয়, ছাত্রীদের কমনরুমেও বখাটেরা উঁকিঝুঁকি দেয়াকে কেন্দ্র করে মাদ্রাসার এক শিক্ষক প্রতিবাদ করলে উল্টো সেই শিক্ষকের উপর হামলা চালিয়ে আহত করেন বখাটেরা।
 
এরআগে গত ৫ মে উপজেলার গাবসারা ইউনিয়নের বানিয়াবাড়ি এলাকায় প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় সপ্তম শ্রেণিতে পড়–য়া এক স্কুলছাত্রীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যায় নাজমুল প্রধানের ছেলে মো. ফারুক শেখ (১৯)।

পরে তাকে সিরাজগঞ্জের এক আত্মীয় বাড়িতে রেখে দফায় দফায় ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ৭ মে ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ভূঞাপুর থানায় ধর্ষণ ও অপহরণের মামলা দায়ের করলে অভিযুক্ত ফারুকসহ তার সহযোগী বিশাল হোসেনকে (২০) গ্রেপ্তার করে ভূঞাপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) ফাহিম ফয়সাল। পরে ৮ মে তাদের টাঙ্গাইল আদালতে প্রেরণ করা হয়। বখাটেদের এমন চিত্র নজরে আসে ভূঞাপুর থানা পুলিশের।
 
এসব অপরাধমূলক কর্মকান্ডরোধে ও গণসচেতনতার লক্ষ্যে ব্যতিক্রমী এক উদ্যোগ নিয়েছেন টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর থানা পুলিশ। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সাঁটিয়ে দিয়েছেন সতর্কতামূলক ফেস্টুন।

সরেজমিনে উপজেলার গোবিন্দাসী উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই পাশের গেটে গিয়ে এমনই একটি সর্তকমূলক বার্তার ফেস্টুন দেখা গেছে। কিন্তু শুক্রবার দুপুরে সেই ফেস্টুন সরিয়ে ফেলেছে বখাটেরা।

পুলিশেরর পক্ষ থেকে সাঁটানো কঠোর সর্তক বার্তায় লেখা রয়েছে- স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসায় সময়ে বা ছুটি হওয়ার সময়ে যেকোন স্কুলের পাশে ও দোকানে আড্ডা দেওয়া এবং অহেতুক ঘোরাফেরা সম্পূর্ণ নিষেধ। ছাত্র-ছাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য আজ থেকে যদি কোনো স্কুল-কলেজ বা মাদরাসার সামনে বখাটে ছেলে পাওয়া যায় তাহলে তাদের গ্রেপ্তার করে আইগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে শিক্ষার্থীরা জানান, রাস্তা-ঘাটে বা স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে বখাটে অনেক ছেলেরা উক্ত্যক্ত ও ইভটিজিংমূলক আচরণ করে থাকে। তাদের এমন অপরাধমূলক কান্ডে প্রতিবাদ করতে গেলেও অপহরণ বা ধর্ষণের শিকার হতে হয়। তাই অনেক কিছু সহ্য করে মেনে নিয়ে স্কুলে আসা-যাওয়া হয়।

তারা আরও জানান, কিন্তু বেশ কয়েকদিন ধরে স্কুলের গেটে পুলিশের সর্তকমূলক ফেস্টুন সাঁটানোর বিষয়টি সময়োপযোগী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে পুলিশ। এতে করে বখাটের উৎপাত কমে আসবে।

অভিভাবকরা জানান, পুলিশের এমন উদ্যোগকে আমরা সাধুবাদ জানাই। প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়ে পুলিশ তৎপর হলে বখাটেরা আর মেয়েদের ইভটিজিং করার সাহস পাবে না। ভূঞাপুর থানার ওসিকে ধন্যবাদ জানান তারা।

এ ব্যাপারে ভূঞাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম বলেন, বখাটেদের অপরামূলক কর্মকান্ডরোধে এমন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। প্রথমে গোবিন্দাসী উচ্চ বিদ্যালয়ে ফেস্টুন সাঁটানো হয়েছে। বিট পুলিশিং মাধ্যমে স্কুলে স্কুলে গণসচেতনতার লক্ষ্যে পথসভা করা হবে।

তিনি আরও জানান, সর্তকমূলক বার্তা ফেস্টুন উপজেলার প্রতিটি স্কুলে দ্রুত সময়ের মধ্যে সাঁটানোর উদ্যোগ নেওয়া হবে। এছাড়া কেউ অভিযোগ করলে বখাটেদের বিরুদ্ধে আইগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এজন্য সবার সহযোগিতা কামনা করছি।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল