• বুধবার   ১৮ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৪ ১৪২৯

  • || ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩

আজকের টাঙ্গাইল
সর্বশেষ:
টাইমবাজারে অভিজাত প্রসাধনী সামগ্রী নিয়ে আমানিয়া স্টোর`র উদ্ধোধন মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে দেশে ফিরেছিলাম: প্রধানমন্ত্রী একমাত্র শেখ হাসিনাই বাংলাদেশের জন্য অপরিহার্য: শেখ পরশ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা গৌতম ঘোষের সাক্ষাৎ এসডিজি অর্জনে সম্মিলিত চেষ্টা ও উদ্ভাবনী ভাবনায় গুরুত্বারোপ আরও এক শ’ কারিগরি স্কুল ও কলেজ হচ্ছে ‘বাংলাদেশের পরিস্থিতি শ্রীলঙ্কার মতো হওয়ার সুযোগ নেই’ গম রপ্তানিতে ভারতের নিষেধাজ্ঞা বাংলাদেশের জন্য নয় পুরস্কার পাবেন মাঠ পর্যায়ে ভূমির সেরা কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট থেকে আয় ৩০০ কোটি ছাড়িয়েছে: বিএসসিএল

পদ্মা সেতুতে রেলিং বসানো শুরু

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ১৮ এপ্রিল ২০২২  

পদ্মা সেতুতে রেলিং বসানো শুরু হয়েছে। শুক্রবার সেতুর মাওয়া প্রান্তের যানবাহন উঠার লেনে এবং জাজিরা প্রান্তে যানবাহন নামার লেনে পরীক্ষামূলকভাবে এই রেলিং স্থাপন করা হয়।

 
সেতু কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বিমানে আসা ২০৪ মিটার রেলিংয়ের মধ্যে দুই প্রান্তে ৩০ মিটার করে ৬০ মিটার রেলিং স্থাপন হয়েছে। এ্যালুমিনিয়ামের তৈরি প্রতিটি ৬ মিটার করে দীর্ঘ এই রেলিংগুলো আনা হয়েছে ব্রিটেন থেকে। আর রেলিং পোস্ট আনা হচ্ছে দুবাই থেকে। কর্তৃপক্ষ জানায়, এই ট্রায়ালের জন্য বিমানে করে প্রথম ৭০টি পোস্ট ২৮ মার্চ এবং ৩৪টি রেলিং ৩০ মার্চ প্রকল্প এলাকায় পৌঁছে। এগুলো স্থাপনের বিষয়ে আগে কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এরপরই রেলিংগুলো স্থাপনের কাজ শুরু হয়। ১৫ ইঞ্চি উচ্চতার এই রেলিং ঘিরে এখন ভীষণ ব্যস্ততা। সংশ্লিষ্টরা জানান, বাকি রেলিং এখন পথে রয়েছে। রেলিংগুলো পৌঁছানোর পর দ্রুত সময়ে স্থাপনের প্রস্তুতি রাখা হয়েছে। সূত্র জানায়, পদ্মা সেতুর রেলিং ভর্তি চারটি কন্টেনারে ২ হাজার ৩২৮টি রেলিং ও ৩ হাজার ২১৫টি কানেক্টরসহ ফিটিংয়ের নাট ও ওয়াশারসহ গত ২৮ মার্চ যুক্তরাজ্যের ফেলিক্সস্টো থেকে সমুদ্র পথে রওনা হয়েছে। জাহাজটি শ্রীলঙ্কার কলম্বোতে পৌঁছবে ২৭ এপ্রিল। এরপর বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছবে ৮ মে।

৫৭৫টি রেলিং বহনকারী পঞ্চম কন্টেনারটি ৮ এপ্রিল ফেলিক্সস্টো হয়ে মের মাঝমাঝি সময়ে বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছবে। বাকি ১৬৩টি রেলিং ১২ এপ্রিল তৈরি হয়েছে। এগুলো বাংলাদেশে পৌঁছবে আকাশপথে। প্রথম কন্টেনারটি ১৮শ’ পোস্ট বহন করে এপ্রিলের শেষের দিকে চট্টগ্রামে এসে পৌঁছবে। দ্বিতীয় কন্টেইনার চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছবে মের প্রথম দিকে। বাকি রেলিং পোস্টগুলো আকাশপথে ঢাকা আনা হবে। এরপর গাড়িযোগে মাওয়ার প্রকল্প এলাকায় নিয়ে আসা হবে। ব্রিটেন থেকে সেতুর রেলিং ও দুবাই থেকে সেতুর রেলিং পোস্টও যথাসময়ে প্রকল্প এলাকায় পৌঁছবে বলে নিশ্চিত করা হয়েছে। ইউক্রেন ও রাশিয়ার যুদ্ধের কারণে কিছু চ্যালেঞ্জ তৈরি হলেও নির্ধারিত সময়ের আগেই পদ্মা সেতুর কাজ শেষ হতে যাচ্ছে। আর তাই উদ্বোধনের সম্ভাব্য তারিখ ঠিক করা হয়েছে বলে দায়িত্বশীল সূত্রগুলো নিশ্চিত করেছে। প্রকৌশলীরা জানান, মূল সেতুর দুই পাশে প্যারাপেট ওয়ালের ওপরে রেলিং বসবে সাড়ে ১২ কিলোমিটার। মাওয়া প্রান্তের ১ দশমিক ৪৭৮ কিলোমিটার দীর্ঘ সংযোগ সেতুতে রেলিং লাগবে ২ দশমিক ৯৫৬ কিলোমিটার। আর ১ দশমিক ৬৭০ কিলোমিটার দীর্ঘ জাজিরা সংযোগ সেতুতে (ভায়াডাক্টে) ৩ দশমিক ৩৪ কিলোমিটার রেলিং বসবে। তাই সব মিলে ১৮ দশমিক ৫৯৬ কিলোমিটার রেলিং বসবে। ৬ মিটার দীর্ঘ প্রায় ৩ হাজার ১০০পিস রেলিং স্থাপন হবে পদ্মা সেতুতে। আগেই বিমানে নিয়ে আসা ২০৪ মিটার রেলিং ৬ মিটার দীর্ঘ ৩৪টি রেলিং এবং ৭০টি রেলিং পোস্ট আগেই বিমানে চলে আসে। এগুলো এখন পরীক্ষামূলকভাবে সেতুতে স্থাপন করা হচ্ছে। সেতুতে রেলিং স্থাপনের পর সেতুর সৌন্দর্য্য বেড়ে গেছে। সেতুর কাজ জুনে শেষ করার লক্ষ্য সফলভাবে এগিয়ে নেয়া হচ্ছে।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল