• শনিবার   ৩১ জুলাই ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১৬ ১৪২৮

  • || ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

আজকের টাঙ্গাইল

উন্নত বিশ্বের দিকে ধাবমান বাংলাদেশ

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ২৩ জুন ২০২১  

৫০ বছরের বাংলাদেশে, অনেক ঝড়-ঝাপটা ও দুঃসময় কাটিয়ে সাড়ে ২৩ বছর দেশশাসন করার সুযোগ পেয়েছে আওয়ামী লীগ। এই সাড়ে ২৩ বছর আওয়ামী আমলের মধ্যে, ২০ বছরের নেতৃত্ব দিচ্ছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা। তার অদম্য নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকারের হাত ধরেই দেশ থেকে দূর হয়েছে ক্ষুধা ও দারিদ্র। লোড শেডিংয়ের অন্ধকার শেষে প্রত্যন্ত গ্রামের এখন পৌঁছে গেছে বিদ্যুতের আলো। টেকনাফ থেকে তেতুলিয়ার মূল সড়কগুলো সব চার লেনে উন্নীত করার মাধ্যমে বৃদ্ধি পাচ্ছে অভ্যন্তরীণ ব্যবসা ও যোগাযোগ।
মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রেখে, সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ও রূপকল্প ২০২১ ঘোষণা করে, ২০১৪ সালের নির্বাচনেও জয়লাভ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০১৮ সালের একাদশ নির্বাচনে জয়লাভের মাধ্যমে, টানা তৃতীয় বার ও মোট চতুর্থ বারের মতো প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। তার হাত ধরেই বাংলাদেশ এখন উন্নত বিশ্বের তালিকায় নাম লেখানোর স্বপ্নময় পথ অতিক্রম করছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন স্বপ্নের গণ্ডি ছড়িয়ে বিশ্বের বিস্ময় হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে। বীরের জাতি হিসেবে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সম্মান ফিরে পেয়েছে বাঙালি জাতি।
গত এক যুগে দেশের মানুষের আর্থিক অবস্থায় অভাবনীয় পরিবর্তন এসেছে। বিএনপি-জামায়াত সরকারের সময় মাথাপিছু আয় ছিল মাত্র ৫৪৩ ডলার, আওয়ামী লীগ সরকার তা চারগুণ বৃদ্ধি করেছে। দেশের মানুষের মাথাপিছু আয় এখন ২ হাজার ২২৭ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় তা বছরে ১ লাখ ৮৮ হাজার ৮৭৩ টাকা। মাথাপিছু আয়ের পাশাপাশি মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) পরিমাণও বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩০ লাখ ৮৭ হাজার ৩০০ কোটি টাকায়। এমনকি করোনা মহামারি মোকাবিলা করেও ঠিক রাখা সম্ভব হয়েছে দেশের অর্থনীতি। ২০১৯-২০ অর্থবছরে জিডিপির প্রবৃদ্ধি হয় ৫ দশমিক ২৪ শতাংশ, ২০২১ সালের জুন মাসেও তা বহাল আছে।
ধর্মের সঠিক শিক্ষা ও প্রসারের জন্য নির্মাণ করা হয়েছে ৫০০ মডেল মসজিদ। নারীদের মাতৃত্বকালীন ছুটি বৃদ্ধি করা হয়েছে ছয় মাস পর্যন্ত। সামাজিক সুরক্ষার আওতায় নিরাপত্তা বেড়েছে বয়স্ক মানুষ, নারী ও শিশুদের। মানবিকতারে হাত ধরে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ।
এদিকে, বাংলাদেশের মানুষের অর্থনৈতিক সক্ষমতা, মানবসম্পদ উন্নয়ন ও ক্ষমতা বৃদ্ধি, দেশের টেকসই অর্থনীতির ভিত্তি গড়ে ওঠার কারণে বিশ্বব্যাপী নজর কেড়েছে বাংলাদেশ। স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উত্তরণ ঘটিয়ে বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে জাতিসংঘ।
এক যুগের চলমান সুশাসনে দেশের মানুষের জীবনযাত্রায় আমূল পরিবর্তন এসেছে। স্বাধীনতার পর গত তিন যুগের অধিক সময়ে যা সম্ভব হয়নি, আওয়ামী লীগ সরকারের সর্বশেষ এক যুগে তাই সম্ভব হয়ে দেখিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নব্বইয়ের দশকে যেখানে বাংলাদেশে মাত্র ২৩ লাখ লোক দারিদ্র্যসীমা অতিক্রম করতে পেরেছিল, সেখানে গত এক দশকে ৫ কোটির বেশি মানুষ নিম্নবিত্ত থেকে মধ্যবিত্ত শ্রেণিতে উন্নীত হয়েছে।
বিএনপি-জামায়াত সরকারের আমলে দেশে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর হার ছিল ৩৮ দশমিক ৪ শতাংশ। বর্তমানে তা ২০ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে এবং হতদরিদ্রের হার ২৪ দশমিক ২ থেকে নেমে কমে ১০ শতাংশের কমে এসেছে।
সবার জন্য বিনামূল্যে উচ্চ শিক্ষার ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। গ্রামে গ্রামে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে কমিউনিটি ক্লিনিক ও ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্র। এসব স্থান থেকে বিনামূল্যে ৩০ ধরণের ওষুধ দেওয়া হচ্ছে। ডিজিটালাইজেশনের ফলে গ্রামীণ অর্থনীতিতেও বইতে শুরু করেছে পরিবর্তনের হাওয়া। প্রতিনিয়ত পালটে যাচ্ছে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর চেহারা। খাদ্য ঘাটতি থেকে খাদ্য উদ্বৃত্তের দেশে পরিণত হয়েছে দেশ। জীবনযাত্রার মান বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশের মানুষের গড় আয়ু বেড়ে ৭১ এর ওপরে উঠেছে (নারীদের ৭৫ বছর ও পুরুষদের ৭১ বছর)।
এছাড়াও জননেত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে লিঙ্গ সমতা, রফতানিমুখী শিল্পায়ন, ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষপণ, রফতানি আয় বৃদ্ধিসহ নানা অর্থনৈতিক সূচকে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে দ্রুতগতিতে। নিজস্ব অর্থায়নে নান্দনিক পদ্মা সেতু, পারমাণবিক বিদ্যুৎকন্দ্র, গভীর সমুদ্রবন্দর, ঢাকা মেট্রোরেলসহ দেশের মেগা প্রকল্পসমূহ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল