• রোববার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩ ||

  • অগ্রহায়ণ ১৮ ১৪৩০

  • || ১৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৫

আজকের টাঙ্গাইল

ফিলিস্তিনিদের ভূমি থেকে উৎখাত রোধে সবকিছুই করব

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ১৮ নভেম্বর ২০২৩  

ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস গত ৭ অক্টোবর ইসরাইলের বিভিন্ন অবৈধ বসতিতে হামলা চালায়। ওই হামলার পর হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে ইসরাইল। এছাড়া তারা হামাসকে পৃথিবীর বুক থেকে পুরোপুরি নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ার লক্ষ্য ঠিক করে। তবে জর্দানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আয়মান সাফাদি সন্দেহ প্রকাশ করে বলেছেন, হামাসকে ইসরাইল কিভাবে নিশ্চিহ্ন করবে; সেটি তারা বুঝতে পারছেন না।
এ বিষয়ে শনিবার এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেছেন, ‘ইসরাইল বলছে তারা হামাসকে নিশ্চিহ্ন করে দিতে যায়। এখানে অনেক সামরিক ব্যক্তিবর্গ আছেন। আমি বুঝতে পারি না এ লক্ষ্য কিভাবে অর্জিত হবে।’এছাড়া এই যুদ্ধের কারণে যেন জর্দানে নতুন করে ফিলিস্তিনি শরণার্থীরা ঢুকতে না পারেন সেদিকেও কড়া নজর রাখবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।
জর্দানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ফিলিস্তিনিদের তাদের ভূমি থেকে উৎখাত ঠেকাতে ‘যা প্রয়োজন তাই করবে’ জর্দান। তিনি বলেছেন, ‘আমরা কখনো এটি হতে দেব না। এটি যুদ্ধাপরাধ সঙ্গে আমাদের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য সরাসরি হুমকি হয়েও দাঁড়াবে। ফিলিস্তিনিদের তাদের ভূমি থেকে উৎখাত ঠেকাতে যা প্রয়োজন আমরা তার সবই করব।’ সংঘাত থেকে বাঁচতে আগে থেকেই জর্দানে অসংখ্য ফিলিস্তিনি শরণার্থী হিসেবে বসবাস করছেন। দেশটির ভয়, যদি ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরের বাসিন্দাদের জোরপূর্বক উচ্ছেদ করা হয় তাহলে তারা জর্দানে আসতে পারেন। গত ৭ অক্টোবর হামাস-ইসরাইলের মধ্যে যুদ্ধ শুরুর পর পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইলের অবৈধ বসতি স্থাপনকারীরা অত্যাচার নির্যাতন বাড়িয়ে দিয়েছে।
হাসপাতালে হামলা এবং এটির ভেতর হামাসের সামরিক অবকাঠামো না পাওয়ার বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ যদি ইসরাইলিরা কোনো কিছু না পায় তাহলে তারা জেনেভা কনভেনশনের চুক্তি ভঙ্গ করেছে। জেনেভা কনভেনশন চুক্তিতে স্পষ্টভাবে উল্লেখ আছে, হাসপাতাল যদি বড় কোনো সামরিক হুমকি না হয় তাহলে এটিতে হামলা চালানো যাবে না। উল্টো হাসপাতাল রক্ষায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকতে হবে।
হাসপাতালে হামলার কারণে ইসরাইলের বিরুদ্ধে এখন আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে যুদ্ধাপরাধ সংঘটিত করার তদন্ত হবে। 
যদিও এসব তদন্ত এবং এটির রায় প্রকাশের বিষয়টি অনেক সময়সাপেক্ষ। কিন্তু ইসরাইল এতে ফেঁসে যাবে। আল-শিফা হাসপাতালের ভেতর রোগী থাকা সত্ত্বেও সেটির ভেতর হামলা চালিয়েছে দখলদার ইসরাইলি সেনারা। গাজায় বিশ্বের অনেক দেশ যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানাচ্ছে। কিন্তু যুক্তরাজ্য, জার্মানি, যুক্তরাষ্ট্র সরাসরি যুদ্ধবিরতির বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে। তারা মূলত ইসরাইলের কথিত আত্মরক্ষার অজুহাতে এখন যুদ্ধবিরতিতে রাজি হচ্ছে না। কিন্তু সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে এ অবস্থান পরিবর্তন করতে বাধ্য হবে তারা। হাসপাতালে কমান্ড সেন্টার থাকার যে দাবি ইসরাইল করেছে সেটিতে যুক্তরাষ্ট্র শুধু সমর্থনই দেয়নি।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল