• মঙ্গলবার   ১৩ এপ্রিল ২০২১ ||

  • চৈত্র ৩০ ১৪২৭

  • || ০২ রমজান ১৪৪২

আজকের টাঙ্গাইল

‘৭১এ গণহত্যার জন্য পাকিস্তানকে ক্ষমা চাইতে বললেন সাবেক রাষ্ট্রদূত

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ৩১ মার্চ ২০২১  

পাকিস্তান ১৯৭১ সালে বাংলাদেশে গণহত্যা চালিয়েছিল। এজন্য পাকিস্তানের ক্ষমা চাওয়া উচিত। এই মত দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে পাকিস্তানের সাবেক রাষ্ট্রদূত ও প্রভাবশালী কূটনীতিক হোসেন হক্কানি। বর্তমানে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের থিঙ্ক ট্যাঙ্ক হাডসন ইনস্টিটিউটে কর্মরত।

মঙ্গলবার ব্রাসেলসে বাংলাদেশ দূতাবাসের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দূতাবাসের আয়োজনে ওয়েবিনারে বক্তব্য দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। ব্রাসেলসে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাহাবুব হোসেন সালেহসহ আরও কয়েকজন ওয়েবিনারে অংশ নেন।

হোসেন হক্কানি বলেন, পূর্ব পাকিস্তান ছিল ওই সময়ে পাকিস্তানি শাসকদের কাছে সোনার ডিম পাড়া হাঁস। বেশিরভাগ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জিত হতো পূর্ব পাকিস্তান থেকেই। এ কারণেই ১৯৭০ সালে নির্বাচনে বিজয়ী আওয়ামী লীগের হাতে ক্ষমতা ছেড়ে দিতেও পাকিস্তানি সামন্ত শাসকরা প্রস্তুত ছিলেন না। বরং ১৯৭১ সালে ইসলামাবাদ তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে (আজকের বাংলাদেশ) স্পষ্টত গণহত্যা চালিয়েছিল। দুর্ভাগ্যজনক হচ্ছে, এখন পর্যন্ত ওই গণহত্যার জন্য ক্ষমা চাওয়ার কোনো ইঙ্গিত পাকিস্তান সরকারের পক্ষ থেকে দেখা যাচ্ছে না। 

তিনি মনে করেন, বাংলাদেশে ১৯৭১ সালে সংঘটিত সব ধরনের নির্যাতনের জন্য পাকিস্তান সরকারকে ক্ষমা চাইতে সে দেশের জনগণেরই আহ্বান জানানো উচিত।

হোসেন হক্কানি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুধু বাঙালির মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং খ্যাতনামা ছিলেন না, তিনি দক্ষিণ এশিয়া তথা ইতিহাসের অন্যতম নেতা, যাকে মহাত্মা গান্ধী ও নেলসন ম্যান্ডেলার সঙ্গে তুলনা করা যায়। 

তিনি আরও বলেন, এ মুহূর্তে বাংলাদেশ পৃথিবীর অন্যতম দ্রুত অগ্রসরমান দেশের একটি এবং দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে সফল দেশ। এর পেছনে অবদান হচ্ছে বঙ্গবন্ধু ও তার সুযোগ্য কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন বলেন, বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী উৎসবের অনুষ্ঠানে গণহত্যার জন্য পাকিস্তান ক্ষমা চাইবে বলে সবাই আশা করেছিল। তবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেষ মুহূর্তে একটি বার্তা পাঠালেও দুর্ভাগ্যজনকভাবে গণহত্যার জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেননি।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল