• শুক্রবার   ০৫ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২২ ১৪২৭

  • || ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

আজকের টাঙ্গাইল
১৯০

ভাগ্নিকে ধর্ষন করলেন খালু, মোবাইলে ভিডিও করলেন খালা!

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ১০ মে ২০২০  

বৈশ্বিক মহামারি নভেল করোনা ভাইরাসের কারণে বাড়িতেই থাকছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া এক ছাত্রী। পাশেই খালার বাড়ি হওয়ায় আসা-যাওয়া করতেন। এর মধ্যেই একদিন ইফতারের দাওয়াত দিয়ে বাড়িতে ডেকে নেন খালা। ইফতার শেষে ওই ছাত্রীকে চা খেতে দেন। কিন্তু চায়ের সঙ্গে নেশাজাতীয় দ্রব্য থাকায় অচেতন হয়ে পড়েন তিনি। এ সময় তাকে ধর্ষণ করেন খালু। আর সেই দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করেন খালা।

 

২ মে ঘটনাটি ঘটেছে সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার কমলাবাড়ি মোকামটিলা গ্রামে। শুক্রবার মধ্য রাতে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত খালা সুমি বেগম ও তার স্বামী কয়েস আহমদকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। পরে তাদের থানায় হস্তান্তর করা হয়। কয়েছ আহমদ একই গ্রামের রেনু মিয়ার ছেলে। সুমি সম্পর্কে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর খালা হন।

 

৪ মে জৈন্তাপুর থানায় সুমি ও কয়েসের বিরুদ্ধে মামলা করেন ভুক্তভোগী ছাত্রী। শনিবার আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান জৈন্তাপুর মডেল থানার ওসি শ্যামল বণিক। তিনি জানান, গ্রেফতাররা অপরাধের কথা স্বীকার করেছেন। এছাড়া ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি কয়েস আহমদ নিষিদ্ধ জুয়া তীর খেলাসহ নানা অপকর্মের সঙ্গে জড়িত।

 

ওসি শ্যামল জানান, ঘটনার দিন ওই ছাত্রীর জ্ঞান ফিরলে চিৎকার শুরু করেন। খবর পেয়ে কয়েস আহমদের বাড়ি থেকে তাকে উদ্ধার করেন বাবা। পরে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করা হয়।

 

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সুমি জানান, দীর্ঘদিন ধরে তিনি পর্নোগ্রাফির সঙ্গে সম্পৃক্ত। পর্নোগ্রাফির জন্যই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীকে কৌশলে এনে স্বামীকে দিয়ে ধর্ষণ ও মোবাইলে ভিডিও ধারণ করেন তিনি।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল
সারাদেশ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর