• বৃহস্পতিবার   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ||

  • ফাল্গুন ১৫ ১৪২৬

  • || ০৩ রজব ১৪৪১

আজকের টাঙ্গাইল
৬২

বাসাইলে নিবন্ধনহীন বিদ্যালয়ও পাচ্ছে সরকারি বই

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

নিবন্ধিত বিদ্যালয় ব্যতীত সরকারি পাঠ্যপুস্তক না পাওয়ার বিধান থাকলেও নিবন্ধনহীন বিদ্যালয় পাচ্ছে সরকারি পাঠ্যবই। একইভাবে শিক্ষা নীতিমালা কার্যক্রমের নিয়ম অনুসারে শিক্ষার্থী ভর্তিতে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণি ব্যতীত সব শ্রেণির ভর্তিতে ছাত্রপত্র গ্রহণের বিধান থাকলেও এ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ভর্তিতে লাগে না কোনো ছাড়পত্র। সরকারি নীতিমালা উপেক্ষা করে টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলা সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২০০ গজের মধ্যে শুরু হয় এ বিদ্যালয়ের কার্যক্রম। যদিও পরবর্তীতে উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বন্ধ হয়ে যায় তাদের কার্যক্রম।

শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ হলেও উপজেলা প্রশাসন ও শিক্ষা বিভাগের নাকের ডগায় এখনও রয়েছে নবনির্মিত লোটাস ক্যাডেট স্কুলের ক্যাম্পাস-২। এখানের শিক্ষার্থীদের দিয়ে উপজেলার পল্লী বিদ্যুৎ রোডের একটি তিনতলা ভবনে চলছে লোটাস ক্যাডেট স্কুলের ক্যাম্পাস-১-এর কার্যক্রম।

জানা যায়, ২০১৯ সালের ২৪ জুলাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর পাশে যাতে নতুন কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠতে না পারে এমন সিদ্ধান্ত দেয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি। আদেশ জারির ভিত্তিতে ২০১৯ সালের ৭ ডিসেম্বর উদ্বোধন হওয়া বাসাইল সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২০০ গজের মধ্যে নিবন্ধনহীন হয়েও পরিচালিত হয় লোটাস ক্যাডেট স্কুল ক্যাম্পাস-২-এর কার্যক্রম। পরে তাদের কার্যক্রম বন্ধ করে দেয় উপজেলা প্রশাসন।

লোটাস ক্যাডেট স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের দেয়া তথ্যমতে, শুধু ছবি আর জন্মনিবন্ধন দিয়ে এখানে ভর্তি হয়েছে শিক্ষার্থীরা। তাদের সরকারি বই সরবরাহ করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে লোটাস ক্যাডেট স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা দুই শতাধিক।

লোটাস ক্যাডেট স্কুলে ছবি আর জন্মনিবন্ধন দিয়ে ভর্তির কথা স্বীকার করেছেন পঞ্চম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত ইভা ও মাহিমের মা, চতুর্থ শ্রেণিতে অধ্যয়নরত জিহাদ সিদ্দিকী, রিহাদের মা এবং রোশদার বাবা কবির মিয়া। স্কুল থেকে তাদের সন্তানদের সরকারি বই দেয়ার কথাও স্বীকার করেছেন তারা।

তারা জানান, ইতিপূর্বে তাদের সন্তানরা অন্য স্কুলে অধ্যয়নরত ছিল। লোটাস ক্যাডেট স্কুলে তাদের সন্তানদের ভর্তি করলেও ছেড়ে আসা স্কুল থেকে ছাড়পত্র নেয়নি।

লোটাস ক্যাডেস স্কুলের পরিচালক ও প্রধান শিক্ষক মো. সফিকুল ইসলাম লোটাস বলেন, গত বছরের ৭ ডিসেম্বর লোটাস ক্যাডেট স্কুলের কার্যক্রম শুরু হয়। বেসরকারি বিদ্যালয় পরিচালনার ক্ষেত্রে কোনো নিবন্ধনের প্রয়োজন নেই।

এ প্রসঙ্গে বাসাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামছুন নাহার স্বপ্না বলেন, উপজেলা প্রশাসন থেকে লোটাস ক্যাডেট স্কুলে কোনো বই সরবরাহ করা হয়নি। অন্য কোনো মাধ্যমে গত বছরের বই তারা সংগ্রহ করে শিক্ষার্থীদের সরবরাহ করেছে। এছাড়া নিয়ম নিয়মবহির্ভূত বাসাইল সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাছে নির্মিত লোটাস ক্যাডেট স্কুল ক্যাম্পাস-২টি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

লোটাস ক্যাডেট স্কুল ক্যাম্পাস-১ নিবন্ধনহীনভাবে পরিচালিত হচ্ছে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যেহেতু সরকারি নিয়মে বাসাইল সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাছে নির্মিত লোটাস ক্যাডেট স্কুল ক্যাম্পাস-২টি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে, সেহেতু অন্যত্র স্কুলের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে কি-না সে বিষয় দেখা আমাদের কাজ নয়। ওই স্কুল পরিচালনাকে কেন্দ্র করে আদালতে মামলা হয়েছে। আদালতে মামলা চলাকালীন আমাদের কিছুই করার নেই।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল
টাঙ্গাইল বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর