• বৃহস্পতিবার   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ||

  • ফাল্গুন ১৫ ১৪২৬

  • || ০৩ রজব ১৪৪১

আজকের টাঙ্গাইল
২৯৯

বাঁধাকপিতে পাওয়া গেছে কৃমি, ব্রেনে ঢুকে হতে পারে মৃত্যু!

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারি ২০২০  

বাঁধাকপি শীতকালের অন্যতম একটি সবজি। আর বাঁধাকপি খেতেও দারুণ সুস্বাদু। সালাদসহ নানাভাবেই এই সবজিটি রান্না করে খাওয়া হয়। এতে আছে শরীরের জন্য গুরুত্বপূর্ণ সব ধরনের ভিটামিন।

 

বাধাকপির পুষ্টিগুণ

বাঁধাকপিতে রিবোফ্লোভিন, প্যান্টোথেনিক অ্যাসিড, থায়ামিন, ভিটামিন বি-৬, ভিটামিন সি ও কে বিদ্যমান। এছাড়াও বাঁধাকপিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, ফসফরাস ও সোডিয়াম। হাড় ভালো রাখতে বাঁধাকপি বেশ কার্যকরী।

 

তবে এতো গুণের হয়েও সবার জন্য এখন আতঙ্কের অপর নাম বাঁধাকপি। চিকিৎসকেরা বলছেন, বাঁধাকপি খেলে হতে পারে মৃত্যুও। কাজেই সাবধান হোন।

 

বাঁধাকপিতে আতঙ্ক ছড়ানোর কারণ

বাঁধাকপিতে আতঙ্কের মূল কারণ, লিফ ক্যাবেজ নামের একটি পোকা। লিফ ক্যাবেজ আদতে কৃমি বা টেপওয়ার্ম যা বাসা বাঁধে বাঁধাকপিতে। প্রথমে অন্ত্রে প্রবেশ করে, সেখান থেকে রক্তের মাধ্যমে পৌঁছে যায় শরীরের নানা অংশে। এই কৃমি ঢুকে পড়ে মস্তিষ্কেও।

 

লিফ ক্যাবেজ খালি চোখে দেখা যায় না। তবে অনেক সময় রান্নার আগে বাঁধাকপি ভালো করে সেদ্ধ করলে কৃমি মরে যায়।

 

লিফ ক্যাবেজ ঘটিত সংক্রমণকে বলে টিনিয়াসিস। তিন ধরণের কৃমি হয়- টিনিয়া সাগিনাটা, টিনিয়া সোলিয়াম ও টিনিয়া এশিয়াটিকা। দেখা গেছে, চোখে পর্যন্ত পৌঁছে যায় এই কৃমিরা।

 

আতঙ্কের বিষয়, প্রাথমিক পর্যায়ে বোঝাই যায় না কৃমি আপনার মস্তিষ্কে প্রবেশ করেছে। তবে এর ফলে সাধারণ কিছু উপসর্গ দেখা দেয়। যেমন- মাথাব্যথা, ক্লান্তি, ভিটামিনের অভাব।

 

ধীরে ধীরে কৃমিরা ব্রেনে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে এবং একটা সময়ে মস্তিষ্ক অচল হয়ে পড়ে। কৃমিরা আকারে ৩.৫ মিটার থেকে ২৫ মিটার পর্যন্ত লম্বা হতে পারে। আর এই কৃমি বেঁচে থাকে প্রায় ৩০ বছর পর্যন্ত।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল
স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর