• সোমবার   ১০ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৬ ১৪২৭

  • || ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

আজকের টাঙ্গাইল
সর্বশেষ:
পুনরায় বিজয়ী হওয়ায় রাজাপাকসেক কে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন পাহাড়ে থাকা উপজাতিদের বুঝতে হবে ও নির্ধারণ করতে হবে তারা কি চান? আদিবাসী বিষয়ক আন্তর্জাতিক সনদ বাস্তবায়ন করতে বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট কাজিপুরে বঙ্গমাতা সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা মাটির দিকে চেয়ে চলতে শিখিয়েছেন : প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে বসবাসকারী উপজাতিরা কি Indigenous নাকি Tribe? আজ বিশ্ব আদিবাসী দিবস উদযাপন নিয়ে পাহাড়ে ধুম্রজাল ভূঞাপুরে জাতীয় শোক দিবসের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত ভূঞাপুরে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ খামারীদের মাঝে গো-খাদ্য বিতরণ ঘাটাইলের ছয়ানী বকশিয়া দাখিল মাদরাসায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি
১১১

ফল প্রকাশের দুই সপ্তাহের মধ্যেই শুরু হবে ভর্তি

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ১৩ মে ২০২০  

করোনার কারনে বিলম্বিত এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর ৭ থেকে ১২ দিনের মধ্যে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান মু. জিয়াউল হক। 

 

তিনি বলেন, ফল প্রকাশ করতে পারলে ৭ থেকে ১২ দিনের মধ্যে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রম শুরু করা যাবে। এটিই আপাতত আমাদের লক্ষ্য। তবে ফল প্রকাশ কিংবা ভর্তি কার্যক্রম শুরুর নির্দিষ্ট কোন তারিখ এখনো নির্ধারণ হয়নি। 

 

তিনি বলেন, চলতি মাসে এসএসসির ফল প্রকাশ করার সম্ভাবনা বেশি। আমরা এখন ওএমআর যাচাই করছি। এছাড়া মন্ত্রণালয় থেকেও চাপ রয়েছে। সে ক্ষেত্রে মে মাসের শেষ দিকে কোন একটা তারিখে এসএসসি ফল প্রকাশ করা হবে। নাহলে এটি জুনের প্রথম সপ্তাহেও গড়াতে পারে। 

 

এসএসসি পরীক্ষার খাতা আগেই দেখা হয়ে গিয়েছিল, বাকী ছিল কেবল এই ওএমআর শিট (অপটিক্যাল মার্ক রিডার) যাচাই। যেকারণে আটকে ছিল পরীক্ষার ফল। তবে ডাক বিভাগের সহায়তায় ওএমআর শিট বোর্ডে এসে পৌঁছানোতে চলতি মাসের শেষ দিকে ফল প্রকাশের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। 

 

মু. জিয়াউল হক বলেন, সবকিছু ঠিক থাকলে মে মাসের শেষ পাঁচ দিনের একটিতে ফল প্রকাশ করার ইচ্ছে আছে আমাদের। 

 

এর আগে তিনি জানিয়েছিলেন, বিকল্প পদ্ধতি না পাওয়ার কারণেই যথা সময়ে মাধ্যমিক ও সমমানের (এসএসসি) পরীক্ষার ফল প্রকাশ করতে পারেননি। গণপরিবহন চালু না থাকাকেও ফল প্রকাশ করতে না পারার গুরুত্বপূর্ণ কারণ হিসেবে বর্ণনা করেছিলেন তিনি।

 

বোর্ড প্রধান জানান, গণপরিবহন বন্ধ থাকায় তখন পরীক্ষার্থীদের উত্তরপত্র বোর্ডে এসে জমা দিতে পারেননি পরীক্ষকরা। এখন ডাক বিভাগের সহায়তায় উত্তরপত্র বা শিক্ষার্থীদের প্রাপ্ত নম্বর ওএমআর শিট বোর্ডে পাঠানো হয়েছে। যা গত ১৮ মার্চ স্ক্যানিং কার্যক্রম স্থগিত করেছিল ঢাকা বোর্ড।

 

উল্লেখ্য, এ বছর ২৮ হাজার ৮৮৪টি প্রতিষ্ঠান থেকে ৯টি সাধারণ বোর্ডের অধীনে এসএসসিতে ১৬ লাখ ৩৫ হাজার ২৪০ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। এরমধ্যে ৭ লাখ ৯১ হাজার ৯১৮ জন ছাত্র এবং ৮ লাখ ৪৩ হাজার ৩২২ জন ছাত্রী। এছাড়াও দাখিলে এবার ২ লাখ ৮১ হাজার ২৫৪ জন এবং এসএসসি ভোকেশনালে ১ লাখ ৩১ হাজার ২৮৫ জন পরীক্ষা দেয়। এসএসসি পরীক্ষা ফেব্রুয়ারি মাসের ৩ তারিখে শুরু হয়ে মার্চের ৫ তারিখ শেষ হয়।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল
শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর