• রোববার   ০৭ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৫ শাওয়াল ১৪৪১

আজকের টাঙ্গাইল
১০০

দীর্ঘ দিনের জন্য রেকর্ড করা হচ্ছে টেলিভিশন ক্লাস

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ২ এপ্রিল ২০২০  

প্রথমে ১৫ দিনের জন্য রেকর্ড করা হলেও এবার টেলিভিশন ক্লাসের সময় বাড়াচ্ছে  বাংলাদেশ সরকার। বাড়ছে ক্লাসের সংখ্যা, আর যুক্ত হচ্ছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও।

 

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) সূত্রে জানা গেছে, যতদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা না হবে ততদিন টেলিভিশনে পাঠাদান কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। সেক্ষেত্রে ঈদুল ফিতরের পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই বলা যায় ঈদুল ফিতরের পর পর্যন্ত টেলিভিশনের মাধ্যমে পাঠদান চালিয়ে যাবে সরকার। 

 

এজন্য বিভিন্ন শ্রেণিতে পাঠদানের নতুন করে সময়সূচি তৈরি করা হচ্ছে। নতুন সূচিতে ৬ষ্ঠ থেকে ৯ম শ্রেণির বিভিন্ন বিষয়ের ওপর প্রতিদিন আটটি করে ক্লাস থাকছে। এছাড়াও পাঠদান প্রক্রিয়া যুক্ত করা হচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের। 

 

মাউশির মহাপরিচালক সৈয়দ গোলাম ফারুক জানান, প্রথমে আমরা এপ্রিল মাসের ২ তারিখ পর্যন্ত পাঠদান পর্ব রেকর্ড করেছিলাম। এখন আরো তিন মাসের ক্লাস রেকর্ড করা হচ্ছে। ছুটি বাড়ছে তাই ক্লাসও বাড়ছে। বর্তমান অবস্থায় মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের পাঠদান অব্যাহত থাকবে। 

 

মাউশির ওয়েবসাইটে নতুন ক্লাসের সূচি প্রকাশ করা হয়েছে। এসব ক্লাসে গত এক সপ্তাহে যে অধ্যায় পড়ানো হয়েছে তার পরের অধ্যায় থেকে শিক্ষার্থীদের নতুন করে পড়াবে শিক্ষকরা। সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এসব ক্লাস সংসদ টেলিভিশনে সম্প্রচার করা হবে। প্রতিটি ক্লাস ২০ মিনিট করে প্রচার হবে। একই ক্লাস দুপুর ২টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত পুনঃপ্রচারও করা হবে।

 

পাশাপাশি টেলিভিশনে প্রচার হওয়া সব ক্লাসগুলো কিশোর বাতায়নে দেয়া হবে। শিক্ষার্থীরা যেকোনো সময়ে তা দেখতে পারবে। এছাড়াও ক্লাসগুলো মাউশির ইউটিউব চ্যানেলেও দেখা যাবে।  

 

এদিকে চলতি সপ্তাহ থেকে সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশনের মাধ্যমে প্রাথমিকের ক্লাসও সম্প্রচার শুরু হবে।

 

এ বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ বলেন, করোনাকালে শিক্ষার্থীদের পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে যেতে টেলিভিশনে ক্লাস নেয়া হবে। এটুআই এর সহায়তায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪০ জন শিক্ষক পুরো প্রক্রিয়াটিতে যুক্ত আছেন। 

 

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ানোর কারণেই প্রাথমিকের ক্লাস টেলিভিশনে প্রচারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান ফসিউল্লাহ। এসব ক্লাসে প্রথম থেকে দ্বিতীয় শ্রেণির জন্য ভিডিও আকারে বর্ণ শেখা ও রিডিং পড়া শেখানো হবে। আর তৃতীয় থেকে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সিলেবাস অনুযায়ী পড়ানো হবে।

 

টেলিভিশন ক্লাসে পড়ানোর পাশাপাশি হোমওয়ার্কও দেয়া হবে। এসব হোমওয়ার্ক পরেরদিনের ক্লাসে সমাধান করে দিবেন শিক্ষকরা।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল
শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর