• শুক্রবার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ||

  • ফাল্গুন ১৫ ১৪২৬

  • || ০৪ রজব ১৪৪১

আজকের টাঙ্গাইল
৪৩

‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’ এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবে ফিলিস্তিনি জনগণ

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিতর্কিত মধ্যপ্রাচ্য শান্তি চুক্তি পরিকল্পনা ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’ বর্ণবাদী প্রথাকে আরো শক্তিশালী করে তুলবে বলে মন্তব্য করেছেন ফিলিস্তিনের স্বশাসন কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস। ফিলিস্তিনি জনগণ এই পরিকল্পনার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ফিলিস্তিন বিষয়ক এক বৈঠকে এ মন্তব্য করেন মাহমুদ আব্বাস। তিনি  বলেন, ফিলিস্তিনিদের ন্যায়সঙ্গত অধিকার আদায়ের আন্দোলনকে চিরতরে স্তব্ধ করে দেয়ার লক্ষ্যেই এই পরিকল্পনা উত্থাপন করা হয়েছে। 

 

নিরাপত্তা পরিষদের ওই বৈঠক শুরু হওয়ার আগে ফিলিস্তিন সংকট প্রসঙ্গে একটি যৌথ বিবৃতি পড়ে শোনান বেলজিয়ামের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। জার্মানি, বেলজিয়াম, এস্তোনিয়া, পোল্যান্ড ও ফ্রান্সের পক্ষ থেকে ওই বিবৃতি দেয়া হয়েছে। ওই বৈঠকে ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’ পরিকল্পনার বিরোধিতা করেছে নিরাপত্তা পরিষদের ইউরোপীয় দেশগুলো।

 

বিবৃতিতে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র দ্বারা উথাপিত এ পরিকল্পনায় জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবকে উপেক্ষা করা হয়েছে। জর্দান নদীর পশ্চিম তীরের ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে অবৈধ ইহুদি বসতি স্থাপন করে জাতিসংঘের আইন লঙ্ঘন করা হচ্ছে বলেও উল্লেখ করা হয়।

 

এর আগে গত ২৮ জানুয়ারি হোয়াইট হাউসে ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’ পরিকল্পনা প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সে সময়ে তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। প্রকাশিত এ পরিকল্পনায় ফিলিস্তিনের আল-কুদস বা জেরুজালেম শহরকে ইসরায়েলের অবিভক্ত রাজধানী হিসেবে উল্লেখ করেছেন ট্রাম্প। এছাড়া এ পরিকল্পনায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসরত ফিলিস্তিনি শরণার্থীদেরকে তাদের দেশে ফিরে যাওয়ার অধিকার থেকেও বঞ্চিত করা হয়েছে।

 

ট্রাম্পের এ শান্তি চুক্তি পরিকল্পনার নিন্দা জানিয়েছে আরব দেশসমূহের সংগঠন আরব লিগ। এ চুক্তি ফিলিস্তিনিদের অধিকার পুরোপুরি লঙ্ঘন করেছে বলেও অভিযোগ করেছে তারা। জাতিসংঘও এ পরিকল্পনাকে প্রত্যাখান করেছে বলে জানা গেছে। এছাড়া  ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’ বিরোধিতায় বিবৃতি দিয়েছেন ব্রিটিশ পার্লামেন্টের ১৩৩ জন সদস্য। মার্কিন ওই শান্তি চুক্তিকে ফিলিস্তিনি জাতির অধিকার এবং আন্তর্জাতিক রীতিনীতির প্রতি মারাত্মক আঘাত বলে উল্লেখ করেছেন পার্লামেন্ট সদস্যরা।

 

এছাড়া এ চুক্তিকে প্রত্যাখান করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। গত ৪ ফেব্রুয়ারি ইইউ’র পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান কর্মকর্তা জোসেপ বোরেল এক বিবৃতিতে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান। তিনি বলেন, ট্রাম্পের এ শান্তি চুক্তিকে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত মাপকাঠি থেকে বাদ দেয়া হচ্ছে। গত ৩ ফেব্রুয়ারি সৌদি আরবের বন্দরনগরী জেদ্দায় ট্রাম্পের কথিত শান্তি পরিকল্পনা চুক্তি নিয়ে একটি জরুরি বৈঠকের আয়োজন করে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি)। সেখানে ট্রাম্পের ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’ কে প্রত্যাখান করে সংস্থাটি। বৈঠকে ট্রাম্পের কথিত শান্তি পরিকল্পনা চুক্তি বাস্তবায়নে মার্কিন প্রশাসনকে কোনো ধরণের সহযোগিতা না করার জন্য সদস্য দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

 

তবে এ পরিকল্পনাকে স্বাগত জানিয়েছে সৌদি আরব। সৌদির সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত এক খবরে বলা হয়, ট্রাম্পের এ পরিকল্পনা ফিলিস্তিনে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য সুবর্ণ সুযোগ তাই ফিলিস্তিনিদের এই সুযোগ নষ্ট করা উচিত নয়।

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল
আন্তর্জাতিক বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর