• সোমবার   ১০ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৬ ১৪২৭

  • || ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

আজকের টাঙ্গাইল
সর্বশেষ:
পুনরায় বিজয়ী হওয়ায় রাজাপাকসেক কে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন পাহাড়ে থাকা উপজাতিদের বুঝতে হবে ও নির্ধারণ করতে হবে তারা কি চান? আদিবাসী বিষয়ক আন্তর্জাতিক সনদ বাস্তবায়ন করতে বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট কাজিপুরে বঙ্গমাতা সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা মাটির দিকে চেয়ে চলতে শিখিয়েছেন : প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে বসবাসকারী উপজাতিরা কি Indigenous নাকি Tribe? আজ বিশ্ব আদিবাসী দিবস উদযাপন নিয়ে পাহাড়ে ধুম্রজাল ভূঞাপুরে জাতীয় শোক দিবসের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত ভূঞাপুরে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ খামারীদের মাঝে গো-খাদ্য বিতরণ ঘাটাইলের ছয়ানী বকশিয়া দাখিল মাদরাসায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি
১০৭

খালেদা জিয়াকে রাজনীতি শূন্য করার নেপথ্যে তারেক রহমান

আজকের টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ২ জুন ২০২০  

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে রাজনীতি শূন্য করার নেপথ্যের মূল নায়ক তারই জ্যেষ্ঠ পুত্র তারেক রহমান। ক্ষমতার লোভে তারেক রহমানই তার মা বেগম জিয়াকে রাজনীতি থেকে মাইনাস করার ষড়যন্ত্রের বীজ বুনে ছিল ২০০১ সালের নির্বাচনের পর। এরপর ২০০৬ সালে মাকে রাজনীতি শূন্য করার জন্য গড়ে তুলেছিলেন আলাদা বলয়। গড়ে তুলেছিলেন হওয়া ভবন। যার ফলে ধীরে ধীরে কোণঠাসা হয়ে পড়তে শুরু করেন খালেদা জিয়া। একে একে সংস্কারপন্থীতে নাম লেখাতে শুরু করেন ত্যাগী ও পোর খাওয়া নেতারা। এরপর নির্বাচন বর্জন, নির্বাচনে ভরাডুবি, হঠকারী সিদ্ধান্তে কর্মসূচি ঘোষণা এমনকি সর্বশেষ ২০১৮ সালের কারাবরণ। বেগম জিয়ার এই করুণ পরিণতির জন্য শুধুমাত্র তার পুত্র তারেক রহমানই দায়ী করেছেন দলের সিনিয়র নেতারা।
সম্প্রতি বিএনপি'র অবহেলিত, সিনিয়র, ত্যাগী ও একসময়ের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্যই জানা গেছে। তাদের মতে, নানা কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে এটা প্রমাণিত যে বিএনপি নিজেই নিজের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছে। জাতীয় কাউন্সিলের পর যেখানে ঘুরে দাঁড়ানোর কথা ছিল তা না করে বিগত বছরগুলোতে ঘটে যাওয়া ঘটনা ও সিদ্ধান্ত বিএনপিকে আরো অনেক পিছনের দিকে নিয়ে গেছে।

তারা বলেন, আমরা এখনো পর্যন্ত জনগণের আস্থা অর্জন করতে পারিনি। দলের চেইন অব কমান্ড নেই, ত্যাগীদের মূল্যায়ন নেই, বিএনপিতে এখন আর জিয়াউর রহমানের আদর্শ নেই। এখানে এখন শুধু ব্যক্তি স্বার্থ। টাকার লোভে পদ-পদবী বিক্রি হচ্ছে। যাকে ইচ্ছা তাকে দায়িত্ব দিয়ে দল চালানো হচ্ছে। যার কারণে সিনিয়র নেতারা প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ হয়ে আজ ঘরে বসে আছেন। তারা আজ সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছেন। এ দলের ভবিষ্যৎ কি?

বিএনপিপন্থী কয়েকজন বুদ্ধিজীবী ও পেশাজীবী নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিএনপি শুধু উল্টোপথে নয়, আত্মঘাতী পথ বেছে নিয়েছে বিগত বছরগুলোতে। কারণ কোন কিছুই তারা ঠিকভাবে করতে পারছে না, দল গোছানো কিংবা পররাষ্ট্র নীতি কোনো দিক থেকেই সঠিক অবস্থানে নেই।

তারা বলেন, বেগম জিয়ার উচিত ছিল সিনিয়র নেতাদের আস্থায় নেয়া। আবার স্থায়ী কমিটির নেতাদেরও সব ইস্যুতে কথা বলতে দেয়া উচিত ছিল। কিন্তু এখন যা হচ্ছে সবই আত্মঘাতী। খালেদা জিয়ার সবাইকে নিয়ে দল চালাতে হবে তিনি একা কয়টি ঘটনা সামাল দেবেন। অন্ধকারে বসে দল চালানোর যুগ নেই। সাত সাগর আর তের নদীর ওপারে বসে মাকে নিয়ন্ত্রণ করা গেলেও দল চালানো যায় না।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলের এক দায়িত্বশীল নেতা জানান, রাজনীতিতে এখন আমাদের হাত-পা বাঁধা। আমরা চাইলে যেকোন সিদ্ধান্ত নিতে পারিনা। কারো ওহীর জন্য অপেক্ষায় থাকতে হয়।

তিনি বলেন, জিয়াউর রহমানের আদর্শকে ভালোবেসে বিএনপিতে যোগ দিয়েছিলাম। কিন্তু সেই আদর্শ আজ নেই। ক্ষমতা চলে গেছে দালালদের হাতে। তাই আমাদের মূল্যায়ন নেই। রাজনীতি শুধু এখন পয়সাওয়ালাদের হাতে। যে যত টাকা খরচ করতে পারবে তার পদ-পদবী ততো ভারী হবে। তাইতো আমরা আজ প্রতিনিয়ত পয়সাওয়ালাদের কাছে হেরে যাচ্ছি।

এ প্রসঙ্গে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মন্ডলীর অন্যতম একজন সদস্য বলেন, রাজনীতি ছেড়ে দেবো কিনা এখন ভাবছি। দলের মধ্যে আমাদের কোন মূল্যায়ন নেই। কোন সিনিয়ারিটি বা জুনিয়ারিটি নেই, তৃণমূলের সঙ্গে কোন যোগাযোগ নেই। দলের সাংগঠনিক কোনো কার্যক্রম নেই। তাই ভাবছি এই হতাশার রাজনীতি করে কি লাভ?

আজকের টাঙ্গাইল
আজকের টাঙ্গাইল
রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর